নতুন উদ্যোক্তা হিসেবে সহজশর্তে জামানতবিহীন ব্যাংক লোন পেতে করণীয়

0
1601
দেশে জনসংখ্যা বৃদ্ধির পাশাপাশি বাড়ছে চাকুরীপ্রার্থীর সংখ্যা কিন্তু দেশের চাকুরীর বাজার আশানূরুপ না হওয়ায় ফলে প্রায়  প্রতিদিনই বৃদ্ধি পাচ্ছে পাশ করা শিক্ষিত বেকারের সমস্যা। বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে বেশিরভাগ শিক্ষার্থী শিক্ষাজীবন শেষ করা মাত্র অর্জনকৃত শিক্ষার মাধ্যমে জীবিকা নির্বাহ করার জন্য উপযুক্ত একটি সরকারী বা বেসরকারী চাকুরীর পেছনে ছুঁটে। কিন্তু শিক্ষিত মেধাবী শিক্ষার্থীরা যদি স্বীয় মেধাকে কাজে লাগিয়ে নিজস্ব উদ্যোগে কোন প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার চেষ্ঠা করে তাহলে যেমন ব্যাক্তিগত ও আর্থ-সামাজিক উন্নয় ঘটবে সেই সাথে দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নসহ বেকার সমস্যা দূরীকরণে এক অাশানুরুপ সমাধান পাওয়া সম্ভব হবে। সম্প্রতি দেশের মানুষের এই বিষয়ে সচেতনতা জাগ্রত হওয়ার ফলে এখন অনেক শিক্ষিত তরুণ-তরুণী শিক্ষাজীবন শেষ হওয়া মাত্রই স্বভাবজাত সাধারণ চাকুরীর পেছনে আর ছোটাছুটি না করে নিজেকে উদ্যোক্তা রুপে প্রতিষ্ঠা করার জন্য স্বীয় মেধাকে কাজে লাগিয়ে নিজস্ব উদ্যোগে বিভিন্ন উৎপাদন ও সেবাধর্মী ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার জন্য কাজ করছে।
ব্যাংক লোন
নতুন উদ্যোক্তা হিসেবে ব্যাংক লোন পেতে করণীয়
একজন উদ্যোক্তা নিজের জীবিকার পাশাপাশি একের অধিক মানুষের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতে পারে। একজন চাকুরীজীবিকে অন্যের প্রতিষ্ঠানে নির্দিষ্ট বেতনে চাকুরীর বিপরীতে সারাজীবন পরিশ্রম করে যেতে হয়। কিন্তু একজন উদ্যোক্তা সেই পরিশ্রমের মাধ্যমেই যদি একটি ভালো প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলতে পারে তাহলে একজন চাকুরীজীবির চেয়ে কয়েকগুণ বেশি আয় করতে পারেন এবং একটি সময় তার আর সেই পরিশ্রম ছাড়াই অর্থনৈতিকভাবে উন্নয়ন সম্ভব।এছাড়াও সামাজিক-জাতীয় ও আর্ন্তজাতিকভাবে খ্যাতি-সুনাম অর্জন ও পরিচিত বৃদ্ধি পাবে।আমাদের দেশের প্রেক্ষাপটে নতুন উদ্যোক্তা হওয়ার জন্য রয়েছে অনেক প্রতিবন্ধকতা। সবচেয়ে বড় প্রতিবন্ধকতা হচ্ছে অর্থের যোগান। উদ্যোক্তা হওয়ার জন্য আপনাকে অর্থ বিনিয়োগ করতে হবে কিন্তু সেই অর্থ যোগান করাটা অনেকের পক্ষেই সম্ভব হয়ে ওঠেনা । অনেক উদ্যোক্তা ব্যাংক লোনের জন্য চেষ্ঠা করে কিন্তু বাংলাদেশের ব্যাংকিং সেক্টর নতুন উদ্যোক্তা শ্রেণীর জন্য বন্ধুসুলভ না হওয়ায় সেখানেও রয়েছে নানা প্রতিবন্ধকতা।

নতুন উদ্যোক্তা হিসেবে ব্যাংক লোন পেতে করণীয়

সরকারী সহযোগীতা ও বেসরকারী বিভিন্ন ব্যবস্থাপনার কারণে সম্প্রতি বাংলাদেশের ব্যাংকিং সেক্টর নতুন উদ্যোক্তা  শ্রেণীর জন্য ব্যাংক লোন সহজতর করেছে। বর্তমানে কোন উদ্যোক্তা ক্ষুদ্র শিল্প প্রতিষ্ঠায় ব্যাংক হতে জামানতবিহীন ব্যাংক ঋণ পেতে পারে। এবং মাঝারি শিল্প প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার জন্য উদ্যোক্তা শ্রেণী ব্যাংক হতে সহজ শর্তে স্বল্প সুদ হারে ব্যাংক লোন পাবে। কিন্তু নতুন উদ্যোক্তা শ্রেণীর নতুন প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার জন্য নিজস্ব উদ্যোগে ২০ শতাংশ খরচ বহন করতে হবে বাকি ৮০ শতাংশ ব্যাংক ঋণের সহযোগীতা পাওয়া যাবে। দেশে বর্তমানে ব্যাংক ঋণের জন্য সহযোগীতা মোট ৫৭টি ব্যাংক প্রতিষ্ঠান। এই ব্যাংকিং সেক্টেরের রয়েছে সারা দেশে প্রায় ৯ হাজারেও বেশি শাখা ও অঙ্গ প্রতিষ্ঠান যার প্রায় সবগুলোই পাওয়া সম্ভব এস.এম.ই ঋণ ব্যবস্থা। এস.এম.ই ঋণ ব্যবস্থাকে আরোও সহজলভ্য ও উদ্যোক্তাবান্ধব করার জন্য চেষ্ঠা করছে বাংলাদেশ ব্যাংক।কোন উদ্যোক্তাশ্রেণী এস.এম.ই ঋণ প্রয়োজনে সর্বোচ্চ সুদহার ১০ শতাংশ। এস.এম.ই ঋণ প্রদানের জন্য সুনিদিষ্ঠ একটি পক্রিয়া তৈরি করে দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এস.এম.ই ঋণের জন্য যে কোন ব্যাংক হতে নিদিষ্ট একটি আবেদন ফরম সংগ্রহ করে তা বাংলায় পূরণ করতে হবে। আবেদনের সঙ্গে সংযুক্ত করতে হবে নবানয়যোগ্য ট্রেড লাইসেন্স,জাতীয় পরিচয় পত্র,পাসপোর্ট সাইজ দুই কপি রঙ্গিন ছবি,আয়কর ও ভ্যাটের কপি,ব্যবসায়িক অন্যান্য ছাড়পত্র, প্রতিষ্ঠানসম্পর্কিত প্রয়োজনীয় সম্পর্কিত কাগজপত্র ও বিবরনী পত্র, ব্যাংক অ্যাকান্টের বিবরণী, এসএমই উদ্যোগসম্পর্কিত প্রশিক্ষণের সনদপত্রসহ ব্যাংকের চাহিদা অনুসারে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দাখিল করতে হবে।
উদ্যোক্তাদের ব্যাংক ঋণ
নতুন উদ্যোক্তা হিসেবে ব্যাংক লোন পেতে করণীয়
স্বল্প সুদে ঋণ সুবিধার জন্য বাংলাদেশ ব্যাংক হতে ৫ ধরনের তহবিল চালু করেছে। এসব তহবিলের সুদহার সর্বোচ্চ ১০ শতাংশ। যে কোন ধরনের উদ্যোক্তাশ্রেণী এসব তহবিল থেকে সহজশর্তে ঋণ সুবিধা নিতে পারেন। এ ছাড়া নতুন উদ্যোক্তা ও নারী উদ্যোক্তা গড়ে তোলার জন্য রয়েছে বিশেষ ধরণের ঋণের সুবিধা । কৃষিভিত্তিক উদ্যোক্তা শ্রেণী তৈরির লক্ষ্যে বাংরাদেশ ব্যাংক হতে আলাদা একটি তহবিল তৈরি করেছে। উদ্যোক্তাশ্রেণী এই তহবিল হতে সারাদেশ হতে ৩৪ টি ব্যাংক ও ২৪ টি আর্থিক প্রতিষ্ঠানসহ সর্বোমোট ৫৮টি মাধ্যমে তহবিল হতে ঋণ সুবিধা পাবে। ৩৪টি ব্যাংকগুলোর তালিকায় রয়েছে জনতা,পূবালী,রূপালী,ইস্টার্ন,ন্যাশনাল,ব্যাক,সাউথইষ্ট,ট্রাষ্ট,এবি,কমার্শিয়াল ব্যাংক অব সিলন,সিটি ব্যাংক,প্রমিয়ার,স্ট্যান্ডার্ড,ব্যাংকঅবএশিয়া,এনসিসি,প্রাইম,ওয়ান,যমুনা,মিউচুয়ালট্রাস্ট,আইএফআইসি,কর্মাস,বিডিবিএল,
এনআরবিকমার্শিয়াল,মিডল্যান্ড,সাউথবাংলা,মেঘনা,ফারমার্স,এনআরবি,মধুমতি,মার্কেন্টাইল,এনআরবি গ্লোবাল,ইউসিবি ও উত্তরা ব্যাংক।ক্ষুদ্র শিল্প প্রতিষ্ঠার জন্য স্বল্প সুদে ঋণ পাওয়া যাবে ৩৬টি ব্যাংক ও ২৭টি আর্থিক প্রতিষ্ঠান থেকে। নতুন উদ্যোক্তাদের জন্য এস,এম,ই খাতে তহবিল গঠন করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক সেই তহবিল হতে ২৪টি ব্যাংক ও ১৫টি আর্থিক প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে ঋণ সুবিধা পাওয়া যাবে।
ইসলামী শরিয়া মোতাবেক উদ্যোক্তাশ্রেণীর জন্য ব্যাংক ঋণের জন্য বাংলাদেশ ব্যংকের মাধ্যমে তহবিল গঠন করা হয়েছে। সেই তহবিলের মাধ্যমে ব্যাংক ঋণ সুবিধা পাওয়া যাবে। ইসলামী শরিয়া মোতাবেক উদ্যোক্তাশ্রেণীর জন্য ব্যংক ঋণ সুবিধা প্রদান করছে শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক,এক্সিম ব্যাংক,আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক,ফাস্ট সিকিউরিটি ও ইউনিয়ন ব্যাংক। এছাড়াও ইসালামিক ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট ইসলামী শরিয়া মোতাবেক ব্যাংক ঋণের সুবিধা প্রদানের লক্ষ্য কাজ করে যাচ্ছে। একজন উদ্যোক্তা ব্যাংক ঋণের আবেদনপত্র জমাদানের ১০ দিন বা কার্যদিবসের মধ্যে ঋণ সম্পর্কিত বিষয়ে নিশ্চিত হতে পারবে। প্রান্তিক পর্যায়ের যেমন কটেজ, মাইক্রো ও ক্ষুদ্র উদ্যোক্তরা সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা, ক্ষুদ্র উদ্যোগে সর্বোচ্চ ৫০ লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ পাওয়া যাবে। নারী উদ্যোক্তাশ্রেণী ব্যাকিগতভাবে জামানবিহীণ সর্বোচ্চ্ ১০ লাখ টাকা ও জামানতসহ ২৫ লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ সুবিধা পেতে পারে।
বি:দ্র:- উপরোক্ত তথ্য-উপাত্তগুলো ইন্টারনেট এবং বিভিন্ন উৎস থেকে যতটা সম্ভব সঠিকভাবে উপস্থাপন ও আপডেট তথ্য প্রদান  করার চেষ্টা করা হয়েছে। তার পরেও এখানে সম্পর্কিত প্রতিষ্ঠান কতৃপক্ষ কতৃর্ক বিভিন্ন ধরণের পরিবর্তন বা পরিমার্জন ও অনিচ্ছাকৃত ভুল-ত্রুটি হতেই পারে। যদি আপনার অতি জরুরী ও নিখুঁত তথ্যের খুবই প্রয়োজন হয় তাহলে বাংলাদেশ ব্যাংক অথবা ব্যাংক ঋণের নিদিষ্ট সরকারী ওয়েবসাইট বা তথ্য অফিসে যোগাযোগ করতে ভুলবেন না। নিমোক্ত তথ্যগুলো গুলো শুধুমাত্র  আপনার তথ্যের চাহিদা পূরণ করতে পারবে।
আমাদের সাথে যুক্ত হতে চাইলৈ : ফেসবুক পেইজ | | ফেসবুক গ্রুপ
উপরোক্ত তথ্য সম্পর্কিত কোন মতামত জানাতে চাইলে কমেন্ট করুন এবং শেয়ার করে অন্যকে জানার সুযোগ করে দিন

 

পূর্ববর্তী নিবন্ধগ্রামীণফোন সকল ইন্টারনেট অফার ২০১৮
পরবর্তী নিবন্ধরবি ৩জি / ৪জি সকল ইন্টারনেট অফার ২০১৮
নিউজ-ই-ল্যাব ( News E Lab ) ওয়েবসাইট ভিজিট করার জন্য আপনাকে স্বাগতম। নিউজ-ই-ল্যাব একটি সম্পূর্ণ্য ব্যতিক্রমধর্মী অনলাইন ভিত্তিক নিউজ পোর্টাল সাইট। এই সাইটে সর্বদাই চেষ্ঠা করা হয় ঘটনার প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে সরাসরি নিজস্ব প্রতিবেদক দ্বারা ঘটনার মূল উৎঘাটন করে পরিষ্কার,পরিচ্ছন্ন,নিরপেক্ষ ও আধুনিক ভাব-ধারার মতামতের ভিত্তিতে খবর প্রকাশ করা ।নিউজ-ই-ল্যাবের বিভাগ-সমূহ : সরকারী চাকুরী বেসরকারী চাকুরী ব্যাংক জবস শিক্ষা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিডি অফার অন্যান্য সকল নিউজ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার কমেন্ট লিখুন
আপনার নাম লিখুন