সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কার এর দাবিতে সমর্থন জানিয়ে অান্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের নতুন কর্মসূচি

0
370
দিন ভর বিক্ষোভ করেছে বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দ।সোমবার দফায় দফায় পুলিশের সাথে সংঘর্ষ করেছে সাভারের অবস্থিত জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রী। এ ঘটনায় আহত হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রোক্টরসহ ২০ এর অধিক ছাত্র-ছাত্রী। এছাড়াও সারা দেশের বিভিন্ন কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রী সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কার এর দাবিতে সমর্থন জানিয়ে নিজ নিজ জেলার ও ক্যাম্পাসের মহাসড়ক অবরোধ করে রাখে।  কোটা সংস্করের দাবিতে সকাল থেকেই ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রী সম্মিলিত কমিটি। এ সময় পুলিশ প্রশাসনের উর্ধতন কর্মকতারা ছাত্র-ছাত্রীদের অবরোধ তুলে নিতে অনুরোধ করলে দফায় দফায় সংঘর্স তৈরি হয়। এক পর্যায়ে পুলিশ টিয়ারসেল ও রাবার বুলেট ছুড়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ক্যাম্পাসের দিকে ফিরে যেতে বাধ্য করে।
অান্দোলনকারী শিক্ষার্থীপবৃন্দ
কোটা সংস্কার দাবিতে অান্দোলনকারী শিক্ষার্থীপবৃন্দ
অপরদিকে নব্য বাস্তবিত বৃহত্তর ময়মনসিংহ বিভাগের বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীগণ বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে থাকা রেললাইন অবরোধ করে ও শহরের বাইবাস মোড়ে অবস্থান কর্মসূচি পালন করে জাতীয় কবি কাজী নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীগণ। এতে করে ময়মনসিংহ শহরের সাথে ঢাকা  রেলপথ ও সড়কপথে সাময়িক ভাবে ১ থেকে ২ ঘন্টার যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যায়। চট্রগাম শহরের ষোলশহর রেলস্টেশনে চট্রগ্রমা বিশ্বিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীগণ রেল লাইনে ওপর সারি বদ্ধভাবে বসে অবরোধ কর্মসুচি পালন করে। একই দাবিতে অবরোধ কর্মসূচি পালন করেছে রংপুরে অবস্থিত বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী এর রাজশাহী প্রকৌশল ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীগণ।সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কার এর দাবিতে সমর্থন জানিয়ে অবরোধ কর্মসূচি পালন হয়েছে রাজশাহী,খুলনা,বরিশাল,সিলেট,চট্রগাম, রংপুরসহ বিভিন্ন বিভাগ ও জেলার সাধারণ শিক্ষার্থীগণ।
কোটা সংস্কার আন্দোলন
আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের নতুন কর্মসূচি
এক পর্যায়ে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের মধ্যে ২০ কমিটির সদস্য নিয়ে মন্ত্রণালয়ে তাদের দাবি উপস্থাপনের জন্য  সোমবার বিকেল ৪টা থেকে ৬টা পর্যন্ত পর্যন্ত একটি প্রতিনিধিদলের সঙ্গে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের নেতৃত্বে আওয়ামী লীগের প্রতিনিধিদলের বৈঠক হয়। এ সময় সেতুমন্ত্রী তাদের দাবি পূরণের আশ্বাস দিয়ে আগামী ৭মে পর্যন্ত এ আন্দোলন স্থগিত করা হয়েছে বলে জানানো হয়। যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের কনফারেন্স রুমে এ বৈঠক হয়। ওবায়দুল কাদের বলেন, ৭ মে পর্যন্ত আন্দোলন স্থগিত রাখতে সম্মত হয়েছেন। কোটাব্যবস্থা সংস্কারের দাবিগুলোর যৌক্তিকতা ইতিবাচক । তরুণরা এই কোটা সংস্কার আন্দোলন করছেন । তারা আমাদের রাজনীতির অপরিহার্য় অংশ। আমরা এই পরবর্তী প্রজন্মের জন্যই রাজনীতি করি। তাই শেখ হাসিনার সরকার কখনো তরুণদের যৌক্তিক দাবিকে উপেক্ষা করেনি। সেই ইতিবাচক দৃষ্টকোণ থেকেই প্রধানমন্ত্রী আমাকে পাঠিয়েছেন। আমার সঙ্গে আমার সহকর্মীরা আছেন।
আমাদের সাথে যুক্ত হতে চাইলৈ : ফেসবুক পেইজ | | ফেসবুক গ্রুপ
উপরোক্ত তথ্য সম্পর্কিত কোন মতামত জানাতে চাইলে কমেন্ট করুন এবং শেয়ার করে অন্যকে জানার সুযোগ করে দিন

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার কমেন্ট লিখুন
আপনার নাম লিখুন