কৃষ্ণসার হরিণ হত্যা মামলায় সালমান খানের জেল

0
366
কৃষ্ণসার হরিণ হত্যা মামলায় দোষী সাব্যস্ত হওয়ায় সম্প্রতি জেল হয়েছে খ্যাতনামা বলিউড সুপারষ্টার সালমান খান। বিরল প্রজাতির কৃষ্ণসার হরিণ হত্যা মামলা যা ২০ বৎসর যাবৎ চলছিল এবং কাল এই মামলার রায় দিয়েছে আদালত। এই মামলায় সালমান খান দোষী সাব্যস্ত হওয়ায় রাজাস্থানের যোধপুর আদালত তাকে জেল ও জরিমানা করে। এই মামলায় সালমান খান বাদে বাকি সকল আসামীদের বেকসুর খালাস দিয়েছে আদালত। এই মামলায় অভুযুক্ত খালাস আসামীরা হলেন সাইফ আলী খান, টাবু ও সোনালী বেন্দ্রেকে।
নায়ক সালমান খান
কৃষ্ণসার হরিণ হত্যা মামলায় সালমান খানের জেল

সালমান খানের আইনজীবী এইচ এম সারম্বত রায়ের প্রতিক্রিয়ার সাংবাদিকদের কাছে দাবি করেন, সরকার এই মামলাকে কেন্দ্রে করে এক সুকৌশনী অবস্থানে থেকে রায়ের স্বপক্ষে অভিযুক্ত কোন শক্ত প্রমাণ দ্বার করাতে সক্ষম হয়নি। এই মামলায় যিনি প্রত্যক্ষদর্শী হিসেবে সাক্ষ্য প্রমাণ দিয়েছেন তিনি সকল ভুয়া ও অযৌক্তিক বক্তব্য আদালতে কাছে উপস্থাপন করেছেন।আইনজীবি আরোও দাবি করেন, যে বন্দুকের গুলিতেই কৃষ্ণসার দুইটির মৃত্যু হয়েছিল তাও সঠিক নয় বলে তার দাবি। গত ২৮ মার্চ নিম্ন আদাতলে এই মামলার শুনানি শেষ হয়। আদালতে প্রত্যক্ষদর্শীর ভাষ্য মতে, সালমান খান ১৯৯৮ সালের ১ ও ২ অক্টোবর মাসের ভারতের রাজাস্থানের যোধপুর “হাম সাথ সাথ হ্যায়”ছবির শুটিংয়ের এক ফাঁকে ভিন্ন ভিন্ন দুইটি অবস্থান থেকে দুইটি বিরল প্রজাতির কৃষ্ণসার হরিণ শিকার করেন। ওই সময়ে তার সঙ্গে ছিলেন সাইফ আলী খান, নীলম টাবু ও সোনালী বেন্দ্রে।

গ্রামবাসীর ভাষ্য মতে, রাজস্থানের যোধপুরের কল্কানি এলাকায় গ্রামের ক্ষুদ্র জাতিত্তার অধিবাসীরা বসবাস করে। তারা হঠাৎ গুলির শব্দ শুনে খোঁজ করতে থাকে গুলির শব্দটি কোথায় থেকে এলো পরে তারা দেখতে পেল বিরল প্রজাতির কৃষ্ণহরিণ হত্যা করা হয়েছে এ দেখে তাঁরা সালমানের জিপসি গাড়িটি ধাওয়া করেন। কিন্তু এক পর্যায়ে তাদের গাড়িটি ধরা সম্ভব হয়নি। ওই সময়ে গাড়ি চালক হিসেবে ছিলেন সালমান খান নিজেই। প্রবল গতিতে গাড়ি চালিয়ে পালিয়ে যাওয়ার কারণে গ্রামবাসী পড়ে আর তাদের ধরতে পারিনি।বেআইনিভাবে জঙ্গলে প্রবেশের অভিযোগে সালমান খানসহ আরোও তিন সুপারস্টার এর বিরুদ্ধে ভারতীয় দন্ডবিধি ১৪৯ নম্বর ধারায় মামলা এখনো চলছে। অন্যদিকে একই মামলায় সালমান খানকে রাজস্থানের যোধপুর আদালত বিরল প্রজাতির কৃষ্ণহরিণ হত্যা মামলায় ৫ বছরের কারাদন্ড ও জরিমানা করছে। বন্য প্রাণী সংরক্ষণ আইনের ৫১ ধারায় দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে। ধারণা করা হয়েছে সালমানকে রাজস্থানের সেন্ট্রাল জেলে পাঠানো হয়েছে। ২০ বছর আগের কৃষ্ণসার হরিণ শিকার মামলার রায় হলো বৃহষ্পতিবার । বলিউড সুপারস্টারের জেল হওয়ায় বলিউড পারায় চলছে এক অনিশ্চয়তার ছায়া। কেননা প্রতি বছরে তাকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন ইভেন্ট অনুযায়ী নামি-দামি ব্যয়-বহুল বাজেটের ছবি লগ্নি হয়।
এবারও তার ব্যতীক্রম ছিলনা সামনে ঈদকে কেন্দ্র করে সালমানকে খানের একটি নতুন রেমো ডি’সুজার ‘রেস থ্রি’ ছবিটি যার বাজেট ধরা হয়েছে ১০০ কোটি রুপি। ১৫জুন ঈদকে সামনে রেখে এই ছবিটি মুক্তি পাবার আশা ছিল । কিন্তু ছবিটির প্রযোজকের এখন মাথায় হাত কিভাবে কি করবেন।  হিট মেশিন নামে খ্যাত সালমান খান ছাড়া বলিউড পারায় এখন চলছে অনিশ্চয়তার এক রুদ্ধশাস পরিবেশ। শুধু ছবি নয় বিভিন্ন টিভি প্রোগ্রামের উপস্থাপনা থেকে শুরু করে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ্য অংশে সংযুক্ত ছিলেন তিনি তাই বড় পর্দা ও ছোট পর্দা সকল দর্শক ও কলাকৌশলী ও প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান রয়েছে এক বিপাকের মধ্যে।
আমাদের সাথে যুক্ত হতে চাইলৈ : ফেসবুক পেইজ | | ফেসবুক গ্রুপ
উপরোক্ত তথ্য সম্পর্কিত কোন মতামত জানাতে চাইলে কমেন্ট করুন এবং শেয়ার করে অন্যকে জানার সুযোগ করে দিন

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার কমেন্ট লিখুন
আপনার নাম লিখুন