ডিবিবিএল রকেট একাউন্ট সম্পর্কিত বিস্তারিত তথ্য

0
304

ডাচ-বাংলা ব্যাংক এর মাধ্যমে বাংলাদেশের সর্বপ্রথম মোবাইল ব্যাংকিং সুবিধা চালু করা হয়।রকেট হচ্ছে ডাচ-বাংলা বা ডিবিবিএল এর মোবাইল ব্যাংকিং সুবিধা।চিরাচরিত ব্যাংকিং আনুষ্ঠানিকতা ব্যতীত ব্যাংক এর সকল সাধারণ যাবতীয় সুবিধা মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে উপভোগ করা যায়। খুব সহজে মোবাইলের মাধ্যমে দেশের যে কোন প্রান্ত হতে আর্থিক লেনদেন করা যায় বিধায় এর পরিচিতি মোবাইল ব্যাংকিং নামে। বর্তমানে ডিবিবিএল রকেট একাউন্টের মাধ্যমে ক্যাশ ইন,ক্যাশ আউট,মার্চেন্ট পেমেন্ট,অনলাইন পেমেন্ট,ইউটিলিটি বিল,বেতন-ভাতাদি,বৈদশিক রেমিট্যান্স সহ এটিএম থেকে অর্থ উত্তোলনের মত যাবতীয় সকল সুবিধা পাওয়া যাচ্ছে।

ডাচ-বাংলা মোবাইল ব্যাংকিং রকেট একাউন্ট সম্পর্কিত বিস্তারিত তথ্য

ডাচ বাংলা মোবাইল ব্যাংকিং সেবা রকেট
ডাচ বাংলা মোবাইল ব্যাংকিং সেবা রকেট

কোথায় থেকে ডিবিবিএল রকেট একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করবেন ?

বাংলাদেশের যেকোন বিভাগ বা জেলা সদরের মধ্যে থাকা ডাচ-বাংলা ব্যাংক অফিস বা অনুমোদিত ব্র্যাঞ্চ, বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক ও রাজশাহী কৃষি উন্নয় ব্যাংকের যেকোন শাখা এছাড়াও দেশের সকল প্রান্তে থাকা ডিবিবিএল রকেট অনুমোদিত রকেট এজেন্ট পয়েন্টে গিয়ে খুব সহজেই ডিবিবি্‌এল রকেট একাউন্ট রেজিষ্ট্রেশন সম্পন্ন করা যাবে।ডিবিবিএল রকেট একাউন্ট খোলার জন্য কোন প্রকার চার্জ প্রদান করতে হয় না সম্পূর্ণ ফ্রী একটি প্রক্রিয়া।বর্তমানে দেশের প্রচলিত সকল মোবাইল অপারেটর যেমন গ্রামীণ,বাংলালিংক,রবি,এয়ারটেল এবং টেলিটক গ্রাহকরা মোবাইল ব্যাংকি সুবিধা নিতে পারবেন।

ডিবিবিএল রকেট একাউন্ট রেজিষ্ট্রেশন করার সকল প্রক্রিয়াসমূহ

আপনি আপনার হাতের মোবাইলের মাধ্যমে খুব সহজেই ডিবিবিএল রকেট একাউন্ট খুলতে পারবেন।তারজন্য আপনাকে আপনার মোবাইল হতে প্রথমে ডায়াল করতে হবে *৩২২# এরপর ১ লিখি ওক করতে হবে।তারপর রিপ্লাই চেপে আপনার পছন্দমত ৪ সংখ্যার গোপন পিন লিখে ওক করতে হবে। পরের ধাপে প্রি-রেজিষ্ট্রেশন সম্পন্ন হয়ে যাবে এবং মোবাইল এসএমএস এর মাধ্যমে আপনার রকেট একাউন্ট নম্বরটি জানতে পারবেন।

ডিবিবিএল স্টুডেন্ট ব্যাংকিং সার্ভিস

প্রাথমিক রেজিষ্ট্রেশন সম্পন্ন হওয়ার পর এখন আপনি ১ কপি পাসপোর্ট সাইজ ছবি ও জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপিসহ আপনার নিকঠস্থ ডিবিবিএল অনুমোদিত রকেট এজেন্ট, ডিবিবিএল ফাস্ট ট্রাক ও ডিবিবিএল ব্রাঞ্চ পয়েন্ট অথবা জেলা ও বিভাগীয় রকেট অফিস এমনকি ডিবিবিএল এজেন্ট ব্যাংকিং অফিসে গিয়েও একটি একাউন্ট ওপেনিং ফরম যাহা কে.ওয়াই.সি ফরম নামে পরিচিত পূরণ করতে হবে এবং আপনার ফিঙ্গার প্রিন্ট ও স্বাক্ষর প্রদান করে যাবতীয় ডকুমেন্ট সঠিকভাবে জমা দিতে হবে।এরপর অনধিক ৩-৫ কার্যদিবসের মধ্যে আপনার একাউন্ট অনুমোদনের জন্য এসএমএস পাবেন।মনে রাখা জরুরি একটি জাতীয় পরিচয়পত্রের বিপরীতে আপনি শুধুমাত্র ১টি ডিবিবিএল রকেট একাউন্ট তৈরি করতে পারবেন।

ঘরে বাসে অনলাইনে ডিবিবিএল রকেট একাউন্ট রেজিষ্ট্রেশন করার

আপনি ইচ্ছা করলে ঘরে বসে অনলাইনের মাধ্যমে ডিবিবিএল রকেট একাউন্ট খুলতে পারবেন।তারজন্য প্রয়োজন হবে একটি স্মার্টফোন।স্মার্টফোনে থাকা গুগল প্লে-স্টোর থেকে প্রথমে ডিবিবিএল রকেট অ্যাপস ডাউনলোড করতে হবে।এরপর রকেট অ্যাপস এর মধ্যে একটি লইগন ডায়ালগ বক্স প্রাথমিক অবস্থায় দেখা যাবে এর নিচে রেজিষ্ট্রেশন বা সাইপ-বাটন থাকবে।সেখানে গিয়ে আপনার নির্ধারিত মোবাইল নম্বর এরপর মোবাইল অপারেটর যেমন জিপি বাংলালিংক রবি এয়ারটেল ও টেলিটক আপনি যে অপারেটর গ্রাহক তা সিলেক্ট করে নতুন একটি পাসওয়ার্ড ও পূণরায় আবার পাসওয়ার্ড দিয়ে সাইন-আপ বাটনে ক্লিক করতে হবে।

এরপর নির্ধারিত মোবাইল নম্বরে একটি ভেরিফিকেশন পিন অথবা কল আসবে সেই পিন নম্বরটি সঠিকভাবে সাবমিট করতে হবে।যদি গ্রাহক নির্ধারিত মোবাইল নম্বরটি উক্ত মোবাইলে চালু অবস্থায় থাকে তাহলে অটোমেটিক ভেরিফিকেশন সম্পন্ন হয়ে প্রাথমিক পর্যায়ের রেজিষ্ট্রেশন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে।রকেট অ্যাপস এ নির্ধারিত মোবাইল নম্বর ও পাসওয়ার্ড দ্বারা লগ-ইন করে এরপর দ্বিতীয় পর্যায়ে উপরোক্তি পূর্বে দেওয়া কে.ওয়াই.সি ফরম পূরণ ও ছবি ও যাবতীয় ডকুমেন্ট এই অ্যাপস মাধ্যমে ধাপে ধাপে ঘরে বসেই সকলকিছু সাবমিট করা যাবে।সকল নির্ধারিত ডকুমেন্ট সঠিকভাবে সাবমিট করতে পারলেই আপনার ডিবিবিএল রকেট এক্যাউন্ট পরিপূর্ণভাবে একটিভ হয়ে যাবে।

ডিবিবিএল রকেট একাউন্ট সম্পর্কিত বিস্তারিত প্রশ্ন ও উত্তর

১। কি ধরণের মোবাইল হ্যান্সসেট ব্যবহার করে রকেট একাউন্ট তৈরি ও ব্যবহার করা যাবে ?
উত্তর : আপনার হাতে থাকা ফিচার ফোনের মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই রকেট একাউন্ট তৈরি ও ব্যবহার করতে পারবেন।তবে স্মার্টফোন ব্যবহারের মাধ্যমে আপনি রকেট অ্যাপস এর এডভান্স ফিচার ও সহজ সুবিধাগুলো উপভোগ করার বাড়তি সুযোগ পাবেন।

২। ডিবিবিএল রকেট একাউন্ট করতে কোন চার্জ বা ফি প্রদান করতে হবে?
উত্তর : জ্বি না। রকেট একাউন্ট করতে আপনার কোন চার্জ বা ফি প্রদান করতে হবে না। কিন্তু প্রাথমিক অবস্থায় একাউন্ট সচল করতে ১০০ টাকা জমা দিতে হবে যাহা ফেরতযোগ্য।আর রকেট একাউন্ট এর মাধ্যমে বিভিন্ন আর্থিক লেনদেন করার জন্য আপনাকে নির্ধারিত সার্ভিস চার্জ প্রদান করতে হবে।

৩। রকেট একাউন্ট খোলার কত দিন পর আর্থিক লেনদেন অথবা সুবিধাগুলো উপভোগ করা যাবে।
উত্তর : রকেট একাউন্ট একটিভ হওয়ার পরপরই আপনি টাকা জমা দিতে পারবেন কিন্তু টাকা উত্তোলনের জন্য আপনাকে ২-৩ কার্যদিবস অপেক্ষা করতে হতে পারে।কিন্তু রকেট এর যাবতীয় ফিচারসমূহ একাউন্ট তৈরির পরপরই ব্যবহার করার সুযোগ পাবেন।

বিকাশ মার্চেন্ট একাউন্ট সম্পর্কিত বিস্তারিত তথ্য

৪। ডিবিবিএল রকেট একাউন্ট এর মাধ্যমে কি কি সুবিধা পাওয়া যাবে ?
বর্তমানে ডিবিবিএল রকেট একাউন্টের মাধ্যমে ক্যাশ ইন,ক্যাশ আউট,মার্চেন্ট পেমেন্ট,অনলাইন পেমেন্ট,ইউটিলিটি বিল,বেতন-ভাতাদি,বৈদশিক রেমিট্যান্স সহ এটিএম থেকে অর্থ উত্তোলনের মত যাবতীয় সকল সুবিধাদি পাওয়া যাচ্ছে।

৫। ডিবিবিল রকেট ব্যাংকিং ব্যবহার করা কতটুকু নিরাপদ?
উত্তর : ডাচ-বাংলা ব্যাংক কর্তৃক পরিচালিত মোবাইল ব্যাংকিং সেবা রকেট গ্রাহকদের নিরাপদ আর্থিক লেনদেনের নিশ্চয়তা প্রদান করে।গ্রাহকদের নিরাপদ লেনদেন আরোও বেশি নিরাপদ ও সহজ করতে যাবতীয় ফিচার গুরত্ব সহকারে দেখা হচ্ছে এবং প্রতিনিয়ত আপডেট করা হচ্ছে।কিন্তু গ্রাহক পর্যায়ে সচেতনতা বৃদ্ধি হলে মোবাইল ব্যাংকিং সেক্টরে নিরাপদ লেনদেনকে সবচেয়ে বেশি ভূমিকা রাখবে।

ডিবিবিএল রকেট ট্রান্সজেকশন লিমিট ও চার্জ সম্পর্কিত তথ্য

ডিবিবিএল রকেট দৈনিক সর্বোচ্চ জমা ৫ বার। দৈনিক সর্বোচ্চ উত্তোলন ৩ বার।প্রতি মাসে সর্বোচ্চ জমা ২০ বার।প্রতি মাসে সর্বোচ্চ উত্তোলন ১০ বার।প্রত্যেক ট্রান্সজেকশন লিমিট (জমা/উত্তোলন) ক্ষেত্রে ১০,০০০ টাকা।দৈনিক ট্রান্সজেকশন লিমিট (জমা/উত্তোলন) ক্ষেত্রে ১০,০০০ টাকা।প্রতি মাসে ট্রান্সজেকশন লিমিট (জমা/উত্তোলন) ক্ষেত্রে ২৫,০০০ টাকা।ডিবিবিএল অফিস,ফাস্ট ট্রাক অথবা যে কোন অনুমোদিত ব্রাঞ্চ অফিস থেকে টাকা জমা উত্তোলনের ক্ষেত্রে সার্ভিস চার্জ ১০টাকা।রকেট এজেন্ট পয়েন্ট মাধ্যমে টাকা জমা ও উত্তোলনের ক্ষেত্রে ০.৯% অথবা ৫টাকা।এটিএম থেকে টাকা উত্তোলন,মার্চেন্ট বিল,ইউটিলিটি বিল,মোবাইল টপ-আপ এর ক্ষেত্রে ফ্রী কোন চার্জ প্রযোজ্য নয়।তবে সেন্ড মানি বা পিটুপি টাকা লেনদেনের ক্ষেত্রে ৫টাকা।ব্যালেন্স অনুসন্ধান ফ্রী কিন্তু স্টেটমেন্ট অনুন্ধান এর জন্য ৩টাকা চার্জ টাকা হবে।

আমাদের সাথে যুক্ত হতে চাইলৈ : ফেসবুক পেইজ | | ফেসবুক গ্রুপ

উপরোক্ত তথ্য সম্পর্কিত কোন মতামত জানাতে চাইলে কমেন্ট করুন এবং শেয়ার করে অন্যকে জানার সুযোগ করে দিন

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার কমেন্ট লিখুন
আপনার নাম লিখুন